বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৭ মার্চ ২০১৯

আপটাইমের সার্টিফিকেট পেল বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি, কালিয়াকৈর, গাজীপুরে নির্মিত “ফোর টায়ার জাতীয় ডাটা সেন্টার”


প্রকাশন তারিখ : 2019-03-07

 

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক Uptime Institute হতে ২য় সার্টিফিকেট (Constructed Facility এর উপর) পেল e½eÜz হাইটেক সিটি, কালিয়াকৈর, গাজীপুরে নির্মিত “ফোর টায়ার জাতীয় ডাটা সেন্টার”। এ তথ্য অদ্য 07.03.2019 এ জানান প্রতিষ্ঠানটি।

 

০২। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের কার্যক্রম বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারী বেসরকারী খাতের তথ্য সংরক্ষণের জন্য বড় পরিসরে ডাটা সংরক্ষণের প্রয়োজনীতা দেখা দেয়। পাশাপাশি ডাটা সমূহের নিরাপত্তা একটি বড় ধরণের চ্যালেঞ্জ যা ভবিষ্যতে আরো প্রকট আকার ধারণ করতে পারে। এ প্রেক্ষাপটে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর আওতায় বাস্তবায়নের লক্ষ্যে “ফোর টায়ার জাতীয় ডাটা সেন্টার (4TDC) স্থাপন” শীর্ষক একটি প্রকল্প বিগত 06.10.2015 ইং তারিখে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় অনুমোদিত হয়। 2015-2020 মেয়াদের এই প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছিল 159955.67 লক্ষ টাকা। এর মধ্যে জিওবি 40019.67 লক্ষ  টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য (চায়না, ২% সুদে ‍ঋণ) ছিল 119936.00 লক্ষ টাকা।

 

০৩। প্রকল্পের সকল প্রশাসনিক ও আর্থিক আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রকল্পটি বিগত মে, ২০১৬ ইং হতে বাস্তবায়ন শুরু করা হয়। e½eÜz হাইটেক সিটি, কালিয়াকৈর, গাজীপুরে প্রায় ৭ একর জায়গার মধ্যে প্রকল্পটির বাস্তবায়ন অর্থাৎ বাংলাদেশের ১ম “ফোর টায়ার জাতীয় ডাটা সেন্টার” এর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। বিগত ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ইং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের মহামান্য রাষ্ট্রপতি Xi Jinping ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে উক্ত ডাটা সেন্টার এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করে এর বাস্তবায়ন কর্মকান্ডকে উৎসাহিত করেছিলেন। উল্লেখ্য, ভেন্ডর হিসাবে চীনের ZTE Corporation ডাটা সেন্টারটির সরাসরি বাস্তবায়ন কাজ পরিচালিত করছেন। ইতোমধ্যে ২ লক্ষ বর্গফুট বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক মানের ভবন নির্মাণ শেষ করে আমদানিকৃত যন্ত্রপাতি স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে এবং বর্তমানে ডাটা সেন্টারটির টেস্ট অপারেশন চলছে। আশা করা যায় আগামি এপ্রিল, ২০১9 এর মাঝামাঝি  সময়ে ডাটা সেন্টারটির নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ শেষ করে বাণিজ্যিক অপারেশন শুরু করা যাবে।  

 

০৪। যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা Uptime Institute নিবিড় পর্যবেক্ষণ করে এর গুণগত মান সম্পর্কিত সার্টিফিকেট প্রদান করছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে দেশে একটি সমন্বিত ও উন্নত তথ্য সমৃদ্ধ বিশ্বমানের (Uptime Institute এর ওয়েবসাইটে প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের ৮ম বৃহত্তম) ডাটা সেন্টার নির্মিত হবে যার ডাউন টাইম হবে শূন্যের কোঠায়। এর মধ্যে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার ডিজিটাল কনটেন্ট এক জায়গায় রাখার সুযোগ সৃষ্টি হবে এবং এর ফলে বিভিন্ন সংস্থার মধ্যে পারস্পরিক তথ্য আদান প্রদান করে ই-সেবার মাধ্যমে উন্নত ও সহজে জনসেবা প্রদান করা যাবে। এ ডাটা সেন্টার সকল প্রকার আধুনিক ডিজিটাল কার্যক্রম, সেবা প্রদান ও ই-বিজনেস এর মূল ভিত্তি হবে। পাশাপাশি সকল ডিজিটাল কার্যক্রমের সাইবার নিরাপত্তা আরো দৃঢ় হবে। এটি বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের একটি মাইলফলক। এর মাধ্যমে বছরে আনুমানিক 1680.00 কোটি টাকা রিটার্ণ আসবে। 


Share with :

Facebook Facebook